কর্ণফুলীতে জমির বিরোধে হামলা-ভাংচুর, নারীসহ আহত ৪

নিজস্ব প্রতিবেদক:

চট্টগ্রাম কর্ণফুলীতে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে বসতবাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর ও মারধর করে নারীসহ ৪ জনকে মারাত্মকভাবে আহত করেছে প্রতিপক্ষরা।

মঙ্গলবার (১৫ জুন) বিকেলে বড়উঠান ইউনিয়নের (৫নং ওয়ার্ড) শাহমীরপুর গ্রামের সিকদার বাড়িরতে এ হামলার ঘটনা ঘটে।
হামলায় আহতরা হলেন-মোঃ লোকমান (৫৫), মোঃ ফোরকান (৫০), মোছাঃ লুৎফুন্নেছা (৪৬) ও জিন্না আক্তার ৩২।

এদিকে, ভাংচুর ও হামলার ঘটনায় ১০ জনকে অভিযুক্ত করে কর্ণফুলী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ (১২৮২) দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগের বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কর্ণফুলী থানার ওসি মোঃ দুলাল মাহমুদ।

মারামারির ঘটনায় পাশের বাড়ির লোকজন এগিয়ে আসলেও প্রতিপক্ষের লোকজন দ্বারা তাঁরাও হামলার শিকার হয়েছেন বলে জানা যায়। এলাকায় এ নিয়ে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

গুরুত্বর আহত মোঃ লোকমান বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ২৮নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানিয়েছেন চমেক পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) শীলব্রত বড়ুয়া।

এলাকাবাসী ও থানার অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কর্ণফুলীর বড়উঠান এলাকার জনৈক হাজী ফয়েজ আহম্মেদের ছেলে মোঃ লোকমান এর সাথে পার্শ্ববর্তী আব্দুল মজিদ ও আব্দুল আজিজ প্রকাশ জুনুদের সাথে জায়গা-জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে একাধিকবার হামলা, পাল্টা হামলা ও হুমকি দমকির ঘটনা ঘটে।

ঘটনার দিন বিকালে মোঃ লোকমানদের বাড়ির পিছনে থাকা পুকুরে কাজ করতে গেলে উভয়পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে উত্তেজনার পরিস্থিতি চলাকালে আব্দুল মজিদের নেতৃত্বে ১০/১৫ জন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বসতবাড়িতে হামলা করে। এ সময় তারা নারী পুরুষের উপর হামলা করে মারাত্মকভাবে আহত করেন। একপর্যায়ে হামলাকারীরা ঘরের বিভিন্ন মালামাল নির্বিচারে ভাংচুর ও বসতবাড়ির ছালের টিনসহ খুলে নিয়ে যায় বলে অভিযোগে উল্লেখ করেছেন। হামলকারীরা দীর্ঘদিন যাবত নানান হুমকি দমকি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছেন। এমনকি প্রতিপক্ষের বখাটে ছেলেরা প্রায় সময় লোকমানের মেয়েদের রাস্তাঘাটে উত্যক্ত করেন বলে অভিযোগ করেছেন।

অভিযুক্ত আব্দুল মজিদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি।

সংশ্লিষ্ট এলাকার ইউপি সদস্য মোঃ নাজিম উদ্দিন জানান, মারামারির ঘটনাটি তিনি লোকেমুখে শোনেছেন। তবে ঘটনার বিস্তারিত তিনি জানেন না।’

অভিযোগকারী তদন্তকারী কর্মকর্তা কর্ণফুলী থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মোঃ সিরাজ জানান, ‘যতদুর জেনেছি দীর্ঘদিন যাবত জমির বিরোধ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিলো। যার জের ধরে আজ বিকেলে মারামারির ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

শাহমীরপুর পুলিশ ফাড়ির আইসি মোঃ নাছির উদ্দিন জানান, ‘বসতবাড়িতে হামলার খবর পেয়ে ওসি স্যারের নির্দেশে তাৎক্ষনিক পুলিশ (মোবাইল টিম) পাঠিয়ে আহতদের উদ্ধার করে মেডিকেলে পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে ‘

Print Friendly, PDF & Email

Related Articles

Back to top button