পটিয়ায় নির্মাণাধীন কালারপোল ব্রিজের গার্ডার ধ্বসে ৫ শ্রমিক আহত

পটিয়া প্রতিনিধিঃ২৬জুন

কর্ণফুলী থানাধীন শিকলবাহা খালে নির্মাণাধীন কালারপোল ব্রিজের রেলিং ধসে পড়ে ৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। আহত ৫শ্রমিক কে উদ্ধার করে স্থানীয়রা হাসপাতালে নিয়ে যান বলে প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান।
আহত শ্রমিকেরা হলেন-মোঃ বিপুল (৩৬) ও মোঃ মফিজ (৩৫)।

বর্তমানে এরা উপজেলার কলেজ বাজারস্থ সাউথ চট্টগ্রাম হসপিটালে চিকিৎসারত রয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম সাউথ হসপিটালের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডাঃ ইফতেখার উদ্দিন। তিনি বলেন-এদের মাথায় ও পায়ে প্রচন্ড আঘাত রয়েছে।

এদিকে সওজের প্রকৌশলী(দোহাজারী জোনের) সমুন সিংহ জানান, কালারপোল ব্রিজের কাজে অসাবধনতা বশত ৪/৫জনশ্রমিক আহত হন, তাদের একজন কে চমেক হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে, বাকিদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়।
খবর পেয়ে পটিয়া থানার পুলিশ টিমের সদস্য এস আই (মোঃ সোলাইমান) ঘটনাস্থলে ২জন শ্রমিকের আহত হবার বিষয়টি সংবাদ মাধ্যমে নিশ্চিত করেছেন, বাকিরা নিখোঁজ রয়েছে না হাসপাতালে আছে তা আমরা পরে জানাতে পারবো। তাদের নাম পরিচয় জানাতে পারছি না।
ঘটনাসূত্রে জানা যায়, হঠাৎ করে সন্ধ্যায় ব্রীজের রেলিংয়ের তিনটি অংশ শিকলবাহা খালে ধসে পড়ে। হঠাৎ প্রচন্ড শব্দ শুনে এলাকার লোকজন দৌড়ে যান।

পরে দেখেন ব্রিজের রেলিং ধসে পড়েছে। স্থানীয়রা জানান, ক্রুটিপূর্ণ নির্মাণ কাজের কারণে এ ধসের ঘটনা ঘটেছে।
তথ্য পাওয়া যায়, ১৯৯৫ সালে শিকলবাহা খালে প্রথম সেতু নির্মাণ হয়। এটি ২০০৭ সালের ১৮ নভেম্বর একটি কারখানার টিনের কয়েল বোঝাই বার্জের আঘাতে সেতুর ৩য় ও ৪র্থ স্প্যান নদীতে পড়ে যায়। সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) ২০০৯ সালের এপ্রিলে কংক্রিট বেইজড গার্ডার সেতু নির্মাণের জন্য ২১ কোটি ৯৭ লাখ টাকা।

পরে পটিয়ার সাংসদ হুইপ শামসুল হক চৌধুরীর সহযোগিতায় ২৬ কোটি টাকা ব্যয়ে পাকা সেতু নির্মাণে আরেক দফা বরাদ্দ দেওয়া হয়। ২০১৭ সালে কাজের টেন্ডার হয়। ২০১৯ সালের ৩০ জুনের মধ্যে নির্মাণকাজ শেষ করার কথা ছিল। কিন্তু ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাজের ধীরগতির কারণে যথাসময়ে কাজ শেষ হয়নি। ফলে সড়ক বিভাগ কাজের মেয়াদ দু’বার বৃদ্ধি করে। ২০২০ সালের ৩০ জুনেও কাজ শেষ না হওয়ায় ফের সময় বর্ধিত করা হয়।

সওজের সূত্রে জানা গেছে, আগামী ৩০জুন২০২১ ইং কাজটি সর্বশেষ করার কথা রয়েছে, তবে দূর্ঘটনার কারণে১০/১৫দিন সময় বৃদ্ধি পেতে পারে এবং কাজটি সম্পন্ন হতে পারে বলে আশা করছেন । এই নিয়ে কালারপোল সেতুর ৩য় দফা সময় বর্ধিত হল।

Print Friendly, PDF & Email

Related Articles

Back to top button