কারিতাস বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তীর উদ্বোধন

প্রেসরিলিজ
২৫ নভেম্বর ২০২১

কারিতাস বাংলাদেশ: ভালোবাসা ও সেবায় ৫০ বছরের পথ চলাÑ এই মূল সুর নিয়ে বেসরকারি সংস্থা কারিতাস বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করছে। আজ বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর সকাল ৯টায় চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন রোডে অবস্থিত বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন হোটেল সৈকতেএক আনন্দঘন বর্ণাঢ্য পরিবেশে সুবর্ণজয়ন্তীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। নভেম্বর ২০২১ থেকে অক্টোবর ২০২২ পর্যন্ত বছর ব্যাপী সারা দেশে সুবণর্ জয়ন্তী উদযাপন করবে কারিতাস বাংলাদেশ যার উদ্বোধন হল আজ চট্টগ্রাম হতে।

সকালে সুবর্ণজয়ন্তীরএকটি শোভা যাত্রা পাথরঘাটায় অবস্থিত সেন্টপ্লাসিডস ্হাইস্কুল ও কলেজ মাঠ হতে শুর ুহয়ে হোটেল সৈকত প্রাঙ্গণে শেষ হয়। এরপর দুপুর ১টা পর্যš Íনানা ধরনের আয়োজনের মধ্য দিয়ে সুবর্ণজয়ন্তীর উদ্বোধনী দিন উদযাপন করেন কারিতাস কর্মীরা। জাতীয় পতাকা ও কারিতাস পতাকা উত্তোলন, ফেস্টুনসহকারে বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উন্মুক্তকরণ, বৃক্ষরোপণ, ফটোগ্যালারিউন্মোচন, প্রামাণ্য চিত্রপ্রদর্শনী, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও আলোচনা সভা অনুষ্ঠি তহয়।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে কারিতাসের নির্বাহী পরিচালক সেবাষ্টিয়ান রোজারিও বিগত ৫০ বছরের ধারাবাহিকতায় মানুষ ও দেশের উন্নয়নে কার্যক্রমের ধারা আরো বেগবান করার অঙ্গীকার করেন।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) ও যুগ্ম সচিব ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী। তিনি বাংলাদেশের উন্নয়নে অবদানের জন্য কারিতাসের প্রশংসা করেন।কারিতাসের ভাল কাজগুলো নিয়ে গবেষণা হওয়া প্রয়োজনবলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন। তিনি আরো বলেন, কারিতাসের সফলঅর্জন ও উদ্যোগ গুলো অন্যান্য সহযোগী প্রতিষ্ঠানের জন্য গাইড লাইন হতে পারে। আন্তঃধর্মীয় সংলাপ ও মানবভ্রাতৃত্ব সম্প্রসারণের উদ্যোগ সত্যি প্রশংসনীয়।

কারিতাস বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট বিশপ জেমস্রমেন বৈরাগীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে গেস্ট কার্ডিনাল প্যাট্রিকডি রোজারিও সিএসসি অব অনার ছিলেন ঢাকার আর্চবিশপ বিজয় এন ডি’ ক্রুজ, ওএমআই। এছাড়া বিশেষ অতিথি ছিলেন কার্ডিনালপ্যাট্রিকডি রোজারি ওসিএসসি, আর্চ বিশপলরে ন্সসুব্রত হাওলাদারসিএসসি, ব্রাদার লরেন্স ডায়েসসি এসসি, ড. বেনেডিক্ট আলোডি’রোজারিও,ভারতেরআগরতলারবিশপলুমেনমন্তেরোসিএসসি। অনুষ্ঠানেবাংলাদেশেরসকলকাথলিকবিশপগণউপস্থিত ছিলেন।

কার্ডিনালপ্যাট্রিকডি রোজারিওসিএসসিবলেন, কারিতাস বাংলাদেশ Ñ কাথলিকম-লী ও দেশের জন্য এক মূল্যবান উপহার।

অনুষ্ঠানে আর্চবিশপবিজয়এনডি’ ক্রুজ, ওএমআইবলেন, কারিতাসজাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবাইকে সেবাদিয়ে থাকে। এই সেবাহলো ভালোবাসা পূর্ণ যামানব সম্প্রীতি তথা মানব ভ্রাতৃত্ব সম্প্রসারণে সহায়ক হবে।

বিশপ জেমস্রমেন বৈরাগী বলেন, জুবিলীর কথা বললে দুটো বিষয় আমাদের গভীরভাবে অনুপ্রাণিত করে-একটিঅতীত, অন্যটিবর্তমান। কারিতাস দীর্ঘ ৫০ বছর মানব কল্যাণে, মানব উন্নয়নে এবং হতদরিদ্র মানুষের জীবন পরিবর্তনে কাজ করে এসেছে ও করেযাচ্ছে।

ড. বেনেডিক্ট আলোডি’রোজারিও বলেন, এ এক গৌরব ময়মুহূর্ত, আনন্দের ও উদযাপনের ক্ষণ, কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ প্রকাশ ¯্রষ্টা ও জনগণেরপ্রতি, প্রাকৃতিক দুযোর্গের পাশাপাশি সামাজিক দুযোর্গের প্রতিও সাড়া দেয়া দরকার।

অনুষ্ঠানেকারিতাসের ৫০ বছরের অর্জনের ইতিহাসসংক্ষেপেউপাস্থাপনকরেনকারিতাসেরপরিচালক (কর্মসূচি) জেমস্ গোমেজ।

এছাড়াশুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেনকারিতাসেরপরিচালক (অর্থ ও প্রশাসন) যোয়াকিমগমেজ,আঞ্চলিকপরিচালকসুক্লেশ জর্জ কস্তা। অন্যদিকে, কারিতাসের ৫০ বছরেরপূর্তিকালেচট্টগ্রামেরবিভিন্ন পেশা ও সংগঠনেরবিশিষ্ট ব্যক্তিরা অনুষ্ঠানেতাদের অনুভূতিপ্রকাশকরেন। তাদের মধ্যে অন্যতমহলেনÑসাধুরামত্রিপুরামিল্টন, বেবীরাণী দে, নোমানউল্লাবাহার, পিটারবাড়ৈপ্রমুখ। অন্যান্য অতিথি হিসেবে অংশ নেনকারিতাসবাংলাদেশেরসাধারণ ও নির্বাহীপরিষদের সদস্যবৃন্দ, চট্টগ্রামের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, অন্যান্য বেসরকারিসংস্থা প্রধানগণ।

বাংলাদেশ কাথলিকবিশপ সম্মিলনীরএকটি স্বেচ্ছাসেবীপ্রতিষ্ঠানকারিতাসবাংলাদেশ। ১৯৬৭ খ্রিষ্টাব্দেতৎকালীনপাকিস্তানেরপূর্বাঞ্চলীয়শাখাঅফিসহিসেবেকারিতাসেরযাত্রাশুরুহয়। পরবর্তীতে ১৯৭০ খ্রিষ্টাব্দের ১২ নভেম্বর প্রলয়ংকারীঘূর্ণিঝড়আঘাতহানার পর ক্ষতিগ্রস্থ উপকূলীয়এলাকারজনসাধারণেরসাহায্যার্থে চট্টগ্রামধর্মপ্রদেশে কর্ডÑ Chittagong Organization for Relief and Development (CORD) নামেসংস্থাটিগঠিতহয়এবংআরোকিছুদিনপরেসংস্থাটি Christian Organization for Relief and Rehabilitation (CORR) নামে কার্যক্রম শুরুকরে। জানুয়ারি ১৩, ১৯৭১ খ্রিষ্টাব্দেএটিএকটিজাতীয়প্রতিষ্ঠানেরূপ নেয় অর্থাৎঢাকায়প্রধানকার্যালয় স্থাপনসহসারা দেশে কার্যক্রম পরিচালনাররূপরেখা তৈরিহয়। বিশেষভাবেউল্লেখ্য যে, ১৯৭২ খ্রিষ্টাব্দের ১৯ জুন সদ্য স্বাধীন দেশেরগণপ্রজাতন্ত্রীবাংলাদেশ সরকারেরঅনুমোদনলাভকরেএবংএকটিজাতীয়সংস্থা হিসেবেআত্মপ্রকাশকরে।

বর্তমানে রাজধানী ঢাকার শান্তিবাগে রয়েছে কারিতাসের প্রধান কার্যালয়। এছাড়া অঞ্চলভিত্তিক কার্যালয় গুলো হচ্ছে- বরিশাল, চট্টগ্রাম, ঢাকা, দিনাজপুর, খুলনা,ময়মনসিংহ, রাজশাহীএবংসিলেট। এসবঅফিসেরমাধ্যমে দেশের ৫৩ জেলার ১৮৭টি উপজেলায়কারিতাসকাজকরছে। কারিতাসের বর্তমান প্রকল্প সংখ্যা ১১২টি, ট্রাস্ট রয়েছে তিনটিএবংসুফলভোগীর সংখ্যা প্রায় ১৭ লক্ষমানুষ।

Print Friendly, PDF & Email

Related Articles

Back to top button