চট্টগ্রাম দারুল মুস্তফা মডেল মাদ্রাসার সবক অনুষ্ঠানে বক্তারা


শিক্ষার পাঠ্যসূচিতে জাগতিক
ও আধ্যাত্মিকতার সমন্বয় দরকার
চট্টগ্রাম দারুল মুস্তফা মডেল মাদ্রাসার সবক অনুষ্ঠান ও দোয়া মাহফিল ৬ জানুয়ারী সকালে মাদ্রাসা ক্যাম্পাসে সম্পন্ন হয়েছে। অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক আলহাজ্ব মুহাম্মদ নঈমুল ইসলাম পুতুল। মেহেমানে আ’লা ছিলেন শাহ্জাদায়ে ইমাম শেরে বাংলা (রহ.) আলহাজ্ব মাওলানা মুহাম্মদ আমিনুল হক আল কাদেরী (মু.জি.আ)। মাদ্রাসার ভুমিদাতা ও সাবেক চেয়ারম্যন আলহাজ্ব কবির আহমদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মুহাম্মদ জায়নুল আবেদীন। এইচ এম জমিরের সঞ্চালনায় কুরআন তেলাওয়াত, নাতে রাসুল (দ.) এবং জাতীয় সংগীত এর মাধ্যমে ছবক অনুষ্ঠান ও দোয়া মাহফিলে প্রধান বক্তা ছিলেন গাউছিয়া কমিটি বাংলাদেশ আবুদাবী শাখার সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব মাওলানা মুহাম্মদ নুরুল হক আলকাদেরী (মু.জি.আ)। ছবক প্রদান করেন কাটিরহাট মুফিদুল ইসলাম ফাযিল মাদ্রাসার আরবী প্রভাষক আলহাজ¦ আল্লামা মুহাম্মদ নুরুল আলম আলকাদেরী (মু.জি.আ)। স্বাগত বক্তব্য রাখেন দারুল মুস্তফা মডেল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা মুহাম্মদ মোরশেদ কাদেরী। উপস্থিত ছিলেন সৈয়দ মুহাম্মদ ইসহাক, মাওলানা মুহাম্মদ জিয়াউল হক আলকাদেরী, আলহাজ্ব আবুল হাশেম সওদাগর, মুহাম্মদ ওসমান হায়দার চৌধুরী, মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন, মুহাম্মদ সেলিম, জাহাঙ্গীর আলম, জমির উদ্দিন জিতু, আব্দুল মান্নান, আব্দুল মোতালেব রাজু, উম্মে মায়মুনা লাভলী, মাওলানা শাওন মনির, মুহাম্মদ মনসুর ইসলাম, মাওলানা আবু তাহের, পারভেজ মোশাররফ, রুমা আকতার, সাদিয়া, হাফেজ কাউসার হামিদ প্রমুখ। বক্তারা বলেন, লুটেরামুক্ত সমাজ গড়তে ক্লাসে ছাত্রছাত্রীদের নৈতিকতা শিক্ষা দেয়া অপরিহার্য। আর সে কাজটা করছে মাদ্রাসাগুলো। মাদ্রাসা শিক্ষা শুধু চার দেয়ালের মধ্যে নয়; সমাজের সর্বস্তরে পৌঁছে দিতে হবে। মাদ্রাসা শিক্ষকদের আর্দশ নীতি ও নৈতিকতার পরিচয় দিয়ে প্রমাণ করতে হবে, তারাই সমাজে যোগ্য নাগরিক গড়ার কারিগর। শিক্ষার নামে চলমান দেউলিয়াত্বের বিপরীতে তারা নিরন্তর কাজ করছেন। এতে মাদরাসা শিক্ষাব্যবস্থার প্রতি সাধারণ মানুষের গ্রহণযোগ্যতা ও নির্ভরতা সৃষ্টি হচ্ছে। বক্তারা আরো বলেন, দেশে দেউলিয়াপনা, সমাজে অরাজকতা এবং চলমান শিক্ষাব্যবস্থায় নীতি-নৈতিকতাহীনতার বিপরীতে শিক্ষার্থীদের ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে শিক্ষার পাঠ্যসূচিতে জাগতিক ও আধ্যাত্মিকতার সমন্বয় দরকার। শেষে মিলাদ-কিয়াম, দোয়া ও মোনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।

Print Friendly, PDF & Email

Related Articles

Back to top button